বাংলা আবাস যোজনা 2022 ঘরের আবেদন করবেন কিভাবে?

বাংলা আবাস যোজনা আবেদন পদ্ধতি

বাংলা আবাস যোজনা 2022 | বাংলা আবাস যোজনা  কত টাকা পাবে |বাংলা আবাস যোজনা লিস্ট 2022 |বাংলা আবাস যোজনা নিউ লিস্ট টোটো |বাংলা আবাস যোজনা ওয়েবসাইট | বাংলা আবাস যোজনা ফর্ম pdf

কেন্দ্র সরকার যেমন, পি এম এ ওয়াই বা প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা স্কিম এর মাধ্যমে, সারা ভারতে গরিব তথা দরিদ্র সীমার নিচে বসবাসকারী জনসাধারণকে ঘর করার টাকা দিয়ে তাদের মাথা গোঁজার ঠাঁই করে দেয়। ঠিক তেমনি আমাদের পশ্চিমবঙ্গ সরকার, কেন্দ্র সরকারের আওতায় থেকে একটি নতুন স্কিম লঞ্চ করেছে, যার নাম হল বাংলা আবাস যোজনা।

স্কিমের নাম বাংলা আবাস যোজনা
আবেদন করতে পারবেন পশ্চিমবঙ্গবাসী
আবেদন প্রক্রিয়া অনলাইন বা অফলাইনে
সময়সীমা 2022 ও2023 সাল
যোগ্যতা দরিদ্র সীমার নিচে বসবাসকারী

লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্প অনলাইন আবেদন 2022

বাংলার আবাস যোজনা (BAY) এর মূল উদ্দেশ্য

গৃহহীন বা মাটির ঘরে বসবাসকারী দারিদ্রসীমার নিচে বসবাসকারী মানুষদের জন্য পাকা ঘর নির্মাণের জন্য আর্থিক সুবিধা প্রদান করা, যাতে একজন দরিদ্র ব্যক্তি পাকা বাড়িতে বসবাসের সুবিধা ও স্বাচ্ছন্দ্য উপভোগ করতে পারে। এই প্রকল্পের মাধ্যমে, 2022 সালের মধ্যে দারিদ্র্যসীমার নীচে বসবাসকারী প্রতিটি পরিবারকে একটি স্থায়ী বাড়িতে থাকার সুবিধা প্রদানের জন্য একটি কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। 

SECC (আর্থ-অর্থনৈতিক কাস্ট সেন্সাস) তালিকা থেকে গ্রাহকদের নির্বাচিত করা হয়। প্রতিটি ভোক্তাকে বর্তমানে টাকা দেওয়া হয়। 1,20,000/- (এক লাখ বিশ হাজার) তিন কিস্তিতে তাদের নিজস্ব বাড়ি প্রস্তুত করতে। 

বাংলার আবাস যোজনা

প্রথম কিস্তিতে 45,000/- (পঁয়তাল্লিশ হাজার) যার মাধ্যমে বাড়ির জানালা পর্যন্ত নির্মাণ, দ্বিতীয় কিস্তিতে 45,000/- (পঁয়তাল্লিশ হাজার) যার মাধ্যমে বাড়ির লিন্টেল স্তর পর্যন্ত নির্মাণ, 30,000 /- (ত্রিশ হাজার) তৃতীয় ও শেষ কিস্তিতে) টাকা যার মাধ্যমে ছাদ-জানালা, দরজা, প্লাস্টারসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ নির্মাণ কাজ করা হয়। 

বাড়ির সর্বনিম্ন আকার 25 বর্গ মিটার বা 260 বর্গ ফুট হওয়া উচিত। প্রতিটি কিস্তির অর্থ গ্রাহকের নির্দিষ্ট ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে FTO(ফান্ড ট্রান্সফার অর্ডার)। পঞ্চায়েত আধিকারিকরা প্রতিটি কিস্তির কাজ তদারকি করার জন্য সরকারী আদেশ অনুসারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেন। বাড়ি নির্মাণ শেষ হওয়ার পর ভোক্তার নাম ও আর্থিক বছর উল্লেখ করে প্রকল্পের নাম বাড়ির দেয়ালে খোদাই করা হয়।

বাংলার আবাস যোজনা ঘোষণা কাল

“বাংলা আবাস যোজনা” লঞ্চ করা হয়েছে 14 সেপ্টেম্বর 2020 সালে।

পশ্চিমবঙ্গ আবাস যোজনা আবেদন করার শর্ত

পশ্চিমবঙ্গ আবাস যোজনা স্কিমটি শুধুমাত্র পশ্চিমবঙ্গের জন্য উপলব্ধ।

বাংলা আবাস যোজনা আবেদন পদ্ধতি

বাংলা আবাস যোজনায় আপনি যদি নিজের নাম নথিভূক্ত করতে চান, তাহলে আপনাকে নিম্নে আলোচিত পদক্ষেপগুলি ও প্রয়োজনীয় তথ্যাদি বা কাগজপত্র প্রমান সহ আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে।প্রথমত আপনি আপনার নিকটবর্তী পঞ্চায়েত বা বিডিও অফিস থেকে, বাংলা আবাস যোজনার অফিশিয়াল ফর্মটি নিয়ে সঠিকভাবে পূরণ করে এবং নিম্নে উল্লেখিত তথ্যাদি বা কাগজপত্রগুলো আবেদনপত্রের সাথে যুক্ত করে আপনার পঞ্চায়েত অফিস অথবা বিডিও অফিসে জমা করে দেবেন।

যদি আপনারা ফরমটি খুঁজে না পান বা পেতে অসুবিধা হয়, তাহলে নিচে আমাদের ডাউনলোড লিঙ্ক থেকে ফর্মটির pdf টি ডাউনলোড করে নিতে পারেন।

বাংলা আবাস যোজনা ফর্ম pdf

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড চেক অনলাইন কিভাবে করবেন ?

যে যে ডকুমেন্টগুলি বা কাগজপত্র গুলি আপনি ফর্মটির সাথে যোগ করবেন সেগুলি হল:-

  1. আধার কার্ড(Aadhar card)
  2. চিরস্থায়ী ঠিকানা প্রমাণপত্র(permanent address proof)
  3. ইনকাম সার্টিফিকেট (income certificate)
  4. ভোটার কার্ড (voter card)
  5. প্যান কার্ড (pan card)
  6. মোবাইল নম্বর (mobie number)
  7. জব কার্ড (100 দিনের কাজের বই) *JOB CARD
  8. 4 টি পাসপোর্ট সাইজ ফটো।
  9. ব্যাঙ্কের বই

উপরে উল্লেখিত সমস্ত তথ্যাদি যাচাই করে নিয়ে ,আপনি এই ফরমটি আপনার নিকটবর্তী পঞ্চায়েত অফিস অথবা BDO অফিসে জমা করে আসতে পারেন।

আবেদন গ্রহণ ও কার্যকরণ পদ্ধতি:-

আপনি যখন আবেদনপত্রটি আপনার নিকটবর্তী পঞ্চায়েত অফিসে বা বিডিও অফিসে জামা পরে আসবেন, তখন আপনার ডকুমেন্টসগুলির সত্যতা যাচাইয়ের ভিত্তিতে, সরকারিভাবে আপনি ঘর পাওয়ার জন্য উপযুক্ত কিনা তা যাচাই করা হবে।

প্রথমত আপনার কাছ থেকে আবেদনপত্রটি গ্রহণ করে নিয়ে, আবেদনপত্রের সাথে যুক্ত কাগজপত্র ঠিক আছে কিনা সেগুলি একজন সরকারি কর্মকর্তা যাচাই করে নেবেন। যাচাই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে পরবর্তী পদক্ষেপ হবে আপনার আবেদনপত্রটি কতটা সত্য বা মিথ্যা তা যাচাই করা।

এইজন্য বিডিও অফিস থেকে একজন সরকারি কর্মকর্তা যেকোনো সময় আপনার এলাকায় পদার্পণ করতে পারেন, এবং আপনার ঘরের অবস্থাটা কি, তা যাচাই করতে পারেন।এমনকি তিনি আপনার পার্শ্ববর্তী প্রতিবেশীদের কাছ থেকে আপনার অর্থনৈতিক ও উল্লেখিত ঘরটি আপনার কিনা, তা যাচাই করনের জন্য জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারেন। 

 এরপরে যদি সরকারি কর্মকর্তার মনে হয় যে, আপনি ঘর পাওয়ার যোগ্য তাহলে, তারপরে সরকারি অফিস তথা বিডিও অফিসে আপনার বাংলা আবাস যোজনা এর ঘর পাওয়ার স্কিমে আপনার নামটি নথিভুক্ত করা হবে এবং সময় সাপেক্ষে আপনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের উপযুক্ত টাকা দুই বা তিন কিস্তিতে প্রদান করা হবে।

বাংলা আবাস যোজনা লিস্ট কিভাবে দেখবেন(গ্রাম পঞ্চায়েতের ঘরের লিস্ট)

বাংলা আবাস যোজনা নতুন তালিকা 2021-22 অনলাইনে এখনও কোনও অফিসিয়াল রেকর্ড নতুন আপডেট নেই। বাংলা আবাস যোজনা তালিকা 2020-21 এই তালিকাটি উপলব্ধ থাকলে, আপনার গ্রাম পঞ্চায়েত বা BDO অফিসকে অবহিত করা হবে। আরও কিছু নথি জমা দেওয়ার জন্য অনুরোধ করা হবে। অনলাইন তালিকা এলে এই thestudentstar.com ওয়েবসাইটে জানানো হবে।

F.A.Q

প্রশ্ন : বাংলা আবাস যোজনার অফিসিয়াল ওয়েবসাইট কোনটি?

উত্তর : wbprd.gov.in

 

Sharing Is Caring:

I am an educational blogger with a couple of websites. By profession, I am a school teacher and love to create & share study-related content on the internet. I always try to serve you the best and correct information.

Leave a Comment