কিভাবে ট্যাগ বিতরণ করা হবে তা নিয়ে একটি গুরুত্বপূর্ণ আপডেট

৯ লক্ষ স্কুল ছাত্র ছাত্রী এবার পাবে পড়াশুনার জন্য সরকারি ট্যাব।

করোনভাইরাস লকডাউনের এই সময়ে যখন রাজ্য জুড়ে সমস্ত স্কুল অনলাইন শিক্ষার পদ্ধতি গ্রহণ করেছে, বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বৃহস্পতিবার বলেছেন যে তাঁর সরকার সরকারী সহায়তায় উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও মাদ্রাসার 9.5 লক্ষ শিক্ষার্থীকে বিনামূল্যে ট্যাবলেট সরবরাহ করবে। । অনলাইনে ক্লাসগুলি  যেন সব শিক্ষার্থীরাই সঠিকভাবে করতে পারে ।

মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন

আমরা (রাজ্য সরকার) সমস্ত উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং মাদ্রাসার 9.5 লক্ষ শিক্ষার্থীদের ট্যাবলেট দেব। এখানে প্রায় ১৪,০০০ রাষ্ট্র-সহায়ক উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং-636 টি সরকারী অনুদান প্রাপ্ত মাদ্রাসা রয়েছে। প্রতিটি শিক্ষার্থী যাতে ট্যাবলেটগুলি পাবেন যাতে তারা অনলাইন ক্লাসগুলি অনুসরণ করতে পারেন,

রাজ্য সরকারের এই পদক্ষেপটি এমন এক সময়ে এসেছে যখন বিশেষত গ্রামীণ অঞ্চলে বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী বাড়িতে স্মার্ট ডিভাইসের অভাবে অনলাইন ক্লাসে অংশ নিতে পারছেন না।রাজ্য সরকারের এই পদক্ষেপ চালু হওয়ার পরে বিশেষ করে গ্রামীণ অঞ্চলে বসবাসকারী শিক্ষার্থীরা বিশেষভাবে উপকৃত হবে কারণ অধিকাংশই গ্রামীণ ছাত্ররা স্মার্টফোন ব্যবহার করে না ফলে তারা অনলাইন ক্লাসে অংশগ্রহণ করতে পারত না ।

কোভিড -19 এর কারণে স্কুলগুলি বন্ধ রয়েছে। অনলাইন ক্লাস চলছে। পরিবার থেকে এমন শিক্ষার্থী আসছেন যাদের বাড়িতে কম্পিউটার বা ল্যাপটপ বা এমনকি স্মার্টফোন নেই। এই শিক্ষার্থীরা নিয়মিতভাবে অনলাইন ক্লাসে প্রবেশ করতে সক্ষম হবেন বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

কিভাবে ট্যাগ বিতরণ করা হবে তা নিয়ে একটি গুরুত্বপূর্ণ আপডেট

কিছুদিন আগেই মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেছিলেন উচ্চমাধ্যমিকের পর ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনা অসুবিধার জন্য তাদের একটি করে ট্যাগ দিবেন বলছিলেন।আজ  একটি বিশাল গুরুত্বপূর্ণ কথা আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করব। মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেছে প্রত্যেকটি স্টুডেন্টদের অর্থাৎ উচ্চমাধ্যমিক পড়ুয়াদের সরাসরি ট্যাবের পরিবর্তে তাদের একাউন্টে 10 হাজার টাকা করে দেয়া হবে।

এবং সেই টাকা দিয়ে তারা তাদের মনের মত ট্যাম্প কিংবা স্মার্টফোন কিংবা কম্পিউটার কিনতে পারেন এক কথায় তারা যেন অনলাইনে ক্লাস করে তার ব্যবস্থা করতে পারে তাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘোষণা করেছেন তাদের একাউন্টে 10000 টাকা করে দেয়া হবে।
করতে হবে এবং তাদের একাউন্টে টাকা ঢোকার পর অবশ্যই তাদেরকে ট্যাব কিংবা স্মার্টফোন কিনতে হবে। সেই স্মার্টফোন কিংবা ট্যাবের রিসিভ কপি সেল্ফ অ্যাটেস্টেড করে প্রধান শিক্ষক মহাশয় কে জমা দিয়ে আসতে হবে।

 

বিস্তারিত জানুন :SC ST OBC ছাত্র ছাত্রী দের স্কলারশিপ- Oasis Scholarship

Sharing Is Caring:

My name is Wasif Hossain. I have been teaching children since graduation as well as writing on various topics with friends. Currently, I am a government teacher. I have also passed many government job exams.

Leave a Comment