নবান্ন স্কলারশিপ(Nabanna Scholarship)আবেদন পদ্ধতি 2022, যোগ্যতা ?

নবান্ন স্কলারশিপ (Nabanna Scholarship) 2022 |উত্তরকন্যা স্কলারশিপ 2022  |নবান্ন স্কলারশিপ হেল্পলাইন নম্বর |পশ্চিমবঙ্গ স্কলারশিপ |মাধ্যমিক পাস স্কলারশিপ | নবান্ন স্কলারশিপ স্ট্যাটাস চেক

আমাদের মাননীয় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী দরিদ্র সীমার নিচে বসবাসকারী ও শিক্ষার সঙ্গে যুক্ত ছাত্র-ছাত্রীদের মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা বা অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ছাত্র-ছাত্রীদের প্রত্যেক বছরে একটি বৃত্তি প্রদান করে থাকেন যেটির নাম হল “নবান্ন বৃত্তি”।পশ্চিমবঙ্গের শিক্ষার্থীরা কেন্দ্র সরকার ও রাজ্য সরকারের কিছু কিছু স্কলার্শিপ বা বৃত্তি পেয়ে থাকে, তবে সেগুলি বৃত্তি ফান্ড থেকে প্রদান করা হয়। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মাননীয় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ‘নবান্ন  বৃত্তি’টি, মুখ্যমন্ত্রীর সরকারি ফান্ড থেকে প্রদান করেন।

উপরিউক্ত এই স্কলারশিপটি দক্ষিণবঙ্গের শিক্ষার্থীদের কাছে ‘ নবান্ন স্কলারশিপ ‘ এবং উত্তরবঙ্গের শিক্ষার্থীদের কাছে ‘ উত্তরকন্যা স্কলারশিপ ‘ নামে পরিচিতি লাভ করেছে। আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে শিক্ষার্থীরা চিপ মিনিস্টার রিলিফ ফান্ড থেকে প্রতিবছর স্কলার্শিপ বা বৃত্তি পেয়ে থাকে। বিভিন্ন কোর্সে আবেদন করার পর শিক্ষার্থীদের প্রাপ্ত স্কলারশিপ এর পরিমান 10000 টাকা।

Contents hide

নবান্ন বৃত্তি বা উত্তরকন্যা স্কলারশিপ আবেদনের যোগ্যতা

  1. শিক্ষার্থীদের অবশ্যই একজন পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।
  2. সরকারিভাবে এবং সহকারী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে বিভিন্ন কোর্সে পাস করার পর, সরকারি স্কুলে পুনরায় ভর্তি হয়ে, এই স্কলারশিপের আবেদন করা যাবে।
    উচ্চ-মাধ্যমিক স্তর মাধ্যমিকে 65 শতাংশ নম্বর
    স্নাতক স্তর উচ্চ মাধ্যমিকে 60% নম্বর
    স্নাতকোত্তর স্তর কলেজে 55% নম্বর
  3. শিক্ষার্থীদের অবশ্যই প্রতিটি শিক্ষাবর্ষে 55% নম্বর পেতে হবে।
  4. নবান্ন বৃত্তি স্কলার্শিপ এ আবেদনকারীর শিক্ষার্থীর পরিবারের বাৎসরিক আয়  60000 টাকার নিচে হতে হবে।
  5. যদি কোনো ছাত্র-ছাত্রী অন্যান্য স্কলারশিপ পেতে থাকে তাহলে সেই ছাত্র-ছাত্রী স্কলারশিপ পাওয়ার যোগ্য নয়।
  6. প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে প্রত্যেক বছর ডিসেম্বর মাসের মধ্যে প্রতিটি শিক্ষাবর্ষের আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে।
  7. আবেদনপত্রে সঠিক তথ্য ও বিবরণ দিয়ে আবেদনপত্রটি সম্পূর্ণ করতে হবে। আবেদন পত্রের মধ্যে কোন ভুল থাকলে সেটি বাতিল বলে গণ্য হবে।
স্কলারশিপের নাম নবান্ন বৃত্তি বা উত্তরকন্যা স্কলারশিপ
শিক্ষাবর্ষ মাধ্যমিক উচ্চ, মাধ্যমিক ও উচ্চ মানের কোর্স।
স্কলারশিপের পরিমাণ প্রতি বছরে 10000টাকা
আবেদনপত্র সময়সীমা প্রতিটি শিক্ষাবর্ষের ডিসেম্বর মাসের পূর্বে।
শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বিবরণ  অবশ্যই সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হতে হবে।
স্কলারশিপ পাওয়ার জন্য প্রাপ্ত নম্বর 55% নম্বর পেতে হবে।
নবান্ন ওয়েবসাইট
www.wbcmo.gov.in

আবেদনপত্রের সঙ্গে যেসকল নথি যুক্ত করতে হবে সেগুলি হল 

  1. পুরো ভর্তি পরীক্ষায় সফলভাবে উত্তীর্ণ হওয়ার  মার্কশিট এর কপি।
  2. Rank Card এর কপি (শুধুমাত্র JEE বা সেই ধরনের পরীক্ষার জন্য)
  3. পারিবারিক আয় এর শংসাপত্র। (DM/ SDO/ BDO/ Group-A সরকারি অফিসার। পৌরসভা / কর্পোরেশনের ডেপুটি কমিশনারের ক্ষেত্রে যুগ্ম B.D.O./ নির্বাহী অফিসারের পদের নিচে নয়)।
  4. ছাত্রের মাসিক পারিবারিক আয় উল্লেখ করে মাননীয় মুখ্যমন্ত্রীর কাছে এমপি/বিধায়কের কাছ থেকে সুপারিশের অনুলিপি।
  5. বর্তমান প্রতিষ্ঠানের প্রধান দ্বারা সীলমোহর সহ যথাযথভাবে প্রতিস্বাক্ষর করা বছর/সেমিস্টার এবং যেকোনো বৃত্তি/সাহায্য/সহায়তার রসিদ উল্লেখ করে তার/তার স্বাক্ষরের অধীনে শিক্ষার্থীর স্ব-ঘোষণা।
  6. ব্যাংক একাউন্টের পাসবুক এর প্রথম পাতার জেরক্স বা প্রতিলিপি।
  7. শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তির রশিদ।
  8. নিজের মোবাইল নম্বর ও যোগাযোগের জন্য সম্পূর্ণ ঠিকানা।
  9. দুই কপি ফটো।
  10. আবেদনপত্র (সঠিক ও নির্ভুল ভাবে পূরণ করতে হবে)

আবেদন পদ্ধতি ও আবেদনপত্র পাঠানোর ঠিকানা 

Department of CMRF Scholarship,

Chief Minister’s Office: ‘NABANNA’

325, Sarat Chatterjee Road

Howrah – 711 102

Or👇

Department of CMRF Scholarship,

Office of the Chief Minister’s Mini Secretariat

‘UTTARKANYA’, New Satellite Township,

Fulbari , Near NJP Station , Jalpaiguri

আবেদন প্রক্রিয়া সম্পূর্ণভাবে হবে সফল হলে, বাছাই করার যোগ্য শিক্ষার্থীদের ইমেইলের মাধ্যমে একটি রশিদ প্রদান করা হয় এবং নির্বাচিত প্রার্থীদের ব্যাঙ্ক একাউন্টে সরাসরি স্কলারশিপের টাকা প্রদান করা হয়।

কোন শিক্ষার্থী যদি আবেদন করার পর তার আবেদনের বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে জানতে চাই, তাহলে 0353-2568211 টেলিফোন নাম্বারে ফোন করে তার আবেদন পত্রের অবস্থা সম্পর্কে জানতে পারে।

 আবার কোন শিক্ষার্থী মনে করলে cmrfuttarkanya@gmail.com, email id মেসেজ করে নিজের আবেদনপত্র সম্পর্কে জানতে পারে।

আবেদনকারী দের মনের কিছু প্রশ্ন

প্রশ্ন – আমি কি নবান্ন স্কলারশিপ এবং ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ করতে পারব ?

উওর – না ,যে কোন একটিতে আবেদন করা যাবে।

প্রশ্ন – আমার এপ্লিকেশনটি ভুল সাবমিট হয়েছে এক্ষেত্রে আমার করনীয় কি?

উত্তর – প্রথমত আপনাকে নবান্ন স্কলারশিপ এর অফিসিয়াল টোল ফ্রি নাম্বারে ফোন করে যোগাযোগ করে নিতে হবে এবং আপনার অ্যাপ্লিকেশনের স্ট্যাটাস কি তা জেনে নিতে হবে, যদি আপনার অ্যাপ্লিকেশনটি রিজেক্ট অথবা ইন কমপ্লিট বলা হয় তাহলে দায়িত্বপ্রাপ্ত সরকারি আধিকারিক কে জিজ্ঞেস করে নিন কিভাবে এর সমাধান সম্ভব। আবেদনপত্র ভুলভাল থেকে সতর্ক হতে অফলাইন অ্যাপ্লিকেশন দেওয়াই শ্রেয়।

প্রশ্ন – এক বছর হয়ে গেল আমি নবান্ন স্কলারশিপ এ অ্যাপ্লিকেশন করেছি কিন্তু টাকা এখনো ব্যাংকে ঢোকেনি ,এখানে আমার করনীয় কি?

উত্তর – প্রথমত টোল ফ্রি নাম্বারে ফোন করে নিয়ে আপনার অ্যাপ্লিকেশন স্ট্যাটাসটা কি তা জেনে নিন, যদি সবকিছু ঠিক থাকা সত্ত্বেও টাকা না ঢোকে তাহলে কি কারনে একাউন্টে টাকা ঢুকছে না, তারা আপনাকে বলে দেবেন। আপনার অ্যাকাউন্ট জনিত কোন ত্রুটি থাকলে সেটি সমাধান করার জন্য ও আপনাকে বলা হবে।

প্রশ্ন – আমি টোল ফ্রি নম্বরে ফোন করে কোন সমাধান পাচ্ছিনা। এক্ষেত্রে আমার করনীয় কি?

উত্তর – এক্ষেত্রে যেটা সবথেকে প্রথমে করণীয় সেটা হল নবান্ন স্কলারশিপ ওয়েবসাইটে গিয়ে একটি কমপ্লেন্ট রেজিস্টার করা, এবং সেই কমপ্লেনটের ভিত্তিতে কিছু সময় লাগলেও আপনি আপনার সমাধান পেয়ে যাবেন।

প্রশ্ন – আমি ডকুমেন্ট সাবমিটের সময় পঞ্চায়েত প্রধানের কাছ থেকে প্রাপ্ত আমার পরিবারের ইনকাম সার্টিফিকেট দিয়েছি। এতে কি আমার স্কলারশিপ পেতে বাধা আসবে?

উত্তর – হ্যাঁ, নবান্ন স্কলারশিপে আবেদন করতে হলে অবশ্যই আপনাকে বিডিও অথরিটি থেকে ইনকাম সার্টিফিকেট নিয়ে, তা আপনার অ্যাপ্লিকেশনের সাথে যুক্ত করে সাবমিট করে দিতে হবে।

আরও পড়ুন :-

I am an educational blogger with a couple of websites. By profession, I am a school teacher and love to create & share study-related content on the internet. I always try to serve you the best and correct information.