কোন ক্লাসের জন্য কি কি স্কলারশিপ পাবে দেখুন লিস্ট ? পশ্চিমবঙ্গ স্কলারশিপ 2022

পশ্চিমবঙ্গ মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পাশ স্কলারশিপ |পশ্চিমবঙ্গ স্কলারশিপ 2022 |মাধ্যমিক পাস স্কলারশিপ 2022 |উচ্চ মাধ্যমিক স্কলারশিপ |বেসরকারি স্কলারশিপ

পশ্চিমবঙ্গ স্কলারশিপ  সকল ছাত্রছাত্রীদের জন্য প্রতিবছরের মতো এবারও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য এবং মধ্যবর্গীয় মেধা যুক্ত ছাত্রছাত্রীদের জন্য কতগুলি গুরুত্বপূর্ণ স্কলারশিপ দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে, এ ব্যাপারে পশ্চিমবঙ্গ সরকার তথা শিক্ষা দপ্তরের ভূমিকা অনস্বীকার্য। বর্তমানে 2022-23 শিক্ষাবর্ষে পশ্চিমবঙ্গের ছাত্র-ছাত্রীরা যে সকল স্কলারশিপে আবেদন করতে পারবে সেগুলো নিয়ে আলোচনা ও কিভাবে আবেদন করবে তা নিয়ে বিস্তারিতভাবে এখানে বলা হলো।

পশ্চিমবঙ্গ স্কলারশিপ সামাজিকভাবে পিছিয়ে পড়া কতগুলি ছাত্রছাত্রী তাদের মেধা কে কাজে লাগাতে না পেরে পড়াশোনা থেকে বঞ্চিত হয়ে নিজেদের জীবনে বিপদ ডেকে আনে, কিন্তু বর্তমানে কতগুলি স্কলারশিপ আছে যেগুলি পিছিয়ে পড়া ও আর্থিকভাবে দুর্বল ছাত্র-ছাত্রীদের নতুনভাবে অনুপ্রেরণা দেবে।

এখন বিশেষ বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ স্কলারশিপ সম্পর্কে নিচের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হলো।

স্বামী বিবেকানন্দ মেরিট কাম মিন্‌স স্কলারশিপ  (SVMCM)

স্বামী বিবেকানন্দ তথা SVMCM স্কলারশিপের আবেদন পদ্ধতি দুই ভাগে বিভক্ত।

  • মাইনোরিটি তথা যে সমস্ত সম্প্রদায় সংখ্যায় কম যেমন-মুসলিম ,শিখ,খ্রিস্টান,বৌদ্ধ ,জৈন প্রভৃতি সম্প্রদায়ের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য একটি আলাদা ওয়েবসাইট তৈরি করা হয়েছে ,যেটির নাম হল ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ। এই স্কলারশিপ প্রথম থেকে এমএ ও পি এইচ ডি ডিগ্রি পর্যন্ত সকল ছাত্র-ছাত্রীদের বৃত্তি তথা স্কলারশিপ প্রদান করে থাকে। পূর্বে স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপ একটি নিজস্ব ওয়েবসাইটের আওতায় থাকলেও বিগত দু-তিন বছর থেকে এটি মাইনোরিটি ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য ঐক্যশ্রী পোর্টালে যোগ করা হয়েছে। এই ওয়েবসাইটে আবেদন করার সময় ছাত্র-ছাত্রীরা স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপ এর জন্য যোগ্য কিনা তা তাদের পাওয়া নাম্বার দেখে তথা ঘোষণা অনুযায়ী 60 শতাংশ নম্বর পেলে, আবেদন প্রক্রিয়া চলাকালীন তাদের স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপ এর আওতায় নিয়ে নেওয়া হয়।

 

  • পূর্বে যে ওয়েবসাইটে স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপ টি আবেদন করা হতো সেই ওয়েবসাইটটিতে এখন শুধুমাত্র হিন্দু সম্প্রদায়ের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপটির কার্যকলাপ পরিচালনা করা হয়।
স্কলারশিপের নাম স্বামী বিবেকানন্দ মেরিট কাম মিন্‌স স্কলারশিপ
আবেদন শুরু  15 আগস্ট  থেকে ।
আবেদন শেষ হবে নভেম্বর-ডিসেম্বর মাসে।
অফিসিয়াল ওয়েবসাইট Click Here
যোগ্যতা
  • আপনাকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।
  • অবশ্যই বার্ষিক পরীক্ষায় 60% নম্বর পেতে হবে।
রেনুয়াল শুরু হবে এটি প্রায় সারা বছরই চলতে থাকে। 

 বিস্তারিত পড়ুন –  স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপ 2022 নতুন নিয়মের আবেদন পদ্ধতি 

ওয়েসিস স্কলারশিপ(Oasis Scholarship) তথা এস.সি ,এস.টি, ও.বি.সি জাতি শংসাপত্র যুক্ত ছাত্রছাত্রীদের জন্য স্কলারশিপ।

পশ্চিমবঙ্গের ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে এমন অনেক ছাত্রছাত্রী থাকে যারা আর্থিক দিক থেকে পিছিয়ে এবং জাতির শংসাপত্র থাকার কারণে তাদেরকে সম্পূর্ণ আলাদা ভাবে একটি বৃত্তির ব্যবস্থা করিয়ে দেওয়ার জন্যই ওয়েসিস স্কলারশিপ ওয়েবসাইটে ব্যবস্থা করা হয়েছে।

স্কলারশিপের নাম ওয়েসিস স্কলারশিপ (Oasis Scholarship) 2022-23
আবেদন শুরু হবে 10/05/2022 থেকে।
আবেদন শেষ হবে অক্টোবর-নভেম্বর মাস পর্যন্ত। প্রয়োজনে বাড়ানো হতে পারে।
অফিসিয়াল ওয়েবসাইট click here
যোগ্যতা দশম থেকে দ্বাদশ ,স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ,পিএইচডি ,প্রভৃতি গুরুত্বপূর্ণ কোর্সে।

চিপ মিনিস্টার স্কলারশিপ বা নবান্ন স্কলারশিপ।

পশ্চিমবঙ্গের গুরুত্বপূর্ণ স্কলারশিপ গুলির মধ্যে যেটি দ্বিতীয় নম্বরে স্থান লাভ করেছে সেটি হল নবান্ন স্কলারশিপ বা চিফ মিনিস্টার স্কলারশিপ(CM relief fund scholarship) এই স্কলারশিপ এ আবেদন করতে গেলে ছাত্র-ছাত্রীদের 55 শতাংশ নম্বর থাকতে হবে। একদিক থেকে বলা যায় 55 শতাংশ থেকে 60 শতাংশ এর নিচের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য এই স্কলারশিপটি চালু করা হয়েছে।

পূর্বে এর আবেদন প্রক্রিয়া অফলাইন হলেও বর্তমানে কোভিড-19 এর প্রকোপে বর্তমানে এর আবেদন প্রক্রিয়া ইমেইল এর মাধ্যমে অনলাইনে নেওয়া হচ্ছে। এই স্কলারশিপ টি আবেদন করতে হলে প্রথমে অফলাইন application form ডাউনলোড করে নিতে হবে তারপর নির্দিষ্ট তথ্য দিয়ে এবং তার প্রমাণস্বরূপ কাগজপত্রের প্রতিলিপি স্ক্যান করে নবান্ন স্কলারশিপ এর অফিসিয়াল ইমেইল আইডিতে পাঠিয়ে দিতে হবে।

স্কলারশিপের নাম চিপ মিনিস্টার স্কলারশিপ বা নবান্ন স্কলারশিপ।
আবেদন শুরু হবে এটি প্রায় সারা বছরই চলতে থাকে। 
আবেদন শেষ হবে এটি প্রায় সারা বছরই চলতে থাকে। 
অফিসিয়াল ওয়েবসাইট click here
যোগ্যতা
  • আপনাকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।
  • যে সমস্ত ছাত্রছাত্রী মাধ্যমিকে 55% নাম্বার পেয়ে পাশ করেছেন অথবা উচ্চ মাধ্যমিকে 60% নাম্বার নিয়ে কলেজে ভর্তি হয়েছে অথবা কলেজে 55% নাম্বার নিয়ে ইউনিভার্সিটিতে ভর্তি হয়েছে, তারাই নবান্ন স্কলারশিপে আবেদন করতে পারবে।

বিস্তারিত পড়ুন – নবান্ন বৃত্তি বা উত্তরকন্যা স্কলারশিপ আবেদনের যোগ্যতা ?

Birla scholarship

এই স্কলারশিপ টি শুধুমাত্র উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করার স্নাতক কোর্সে ভর্তি হওয়া,সেই সমস্ত ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য বৈধ যাদের পরিবারের বার্ষিক আয় 75 হাজার টাকার বেশি নয়। যে সকল ছাত্র-ছাত্রী এই পর্যায়ে অন্তর্ভুক্ত তারা এই স্কলারশিপটির জন্য আবেদন করতে পারবে। তবে অবশ্য সেই শিক্ষার্থীদের উচ্চ মাধ্যমিকে 60% নম্বর পেতে হবে।

স্কলারশিপের নাম Priyamvada Birla scholarship.
আবেদন শুরু হবে August 2022
আবেদন শেষ হবে September 2022
অফিসিয়াল ওয়েবসাইট click here
যোগ্যতা UG after passed H.S exam with 60% marks

ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ (Aikyashree scholarship)

আমরা সকলেই ঐক্যশ্রী স্কলারশিপের সম্পর্কে কিছুটা হলেও জানি। বর্তমানে যতগুলো স্কলারশিপ ছাত্র ছাত্রীদের জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকার প্রদান করে সেগুলোর মধ্যে এটি হলো অন্যতম। প্রথম শ্রেণী থেকে শুরু করে দশম শ্রেণী, স্নাতক থেকে স্নাতকোত্তর, মেডিকেল, পিএইচডি ও বিভিন্ন উচ্চ মর্যাদা সম্পন্ন শিক্ষা ক্ষেত্রে এই স্কলারশিপ পাওয়া যায়। 

এই স্কলারশিপের আবেদন প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ অনলাইনে। এই স্কলারশিপে আবেদন করে 1000 টাকা থেকে 60000 টাকা পর্যন্ত স্কলারশিপ পাওয়া যায়। কোন ছাত্র-ছাত্রী যদি হোস্টেলে থেকে পড়াশোনা করে তাহলে তাদের আরো কিছু টাকা বেশি করে দেওয়া হয়। সময় সাপেক্ষে সেই টাকার পরিমাণ পরিবর্তনশীল।

স্কলারশিপের নাম ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ (Aikyashree scholarship)
আবেদন শুরু হবে আগস্ট-সেপ্টেম্বর মাস থেকে ।
আবেদন শেষ হবে নভেম্বর-ডিসেম্বর মাসে।প্রয়োজনে বাড়ানো হতে পারে।
অফিসিয়াল ওয়েবসাইট click here
যোগ্যতা 1 to 12, UG,PG and others

বিস্তারিত পড়ুন

কন্যাশ্রী,K2, K3 স্কলারর্শিপ

পশ্চিমবঙ্গের শুধুমাত্র মহিলা শিক্ষার্থীদের জন্য এই স্কলারশিপ টি চালু করা হয়। প্রথমত ষষ্ঠ বা সপ্তম শ্রেণী থেকে প্রত্যেক স্কলারশিপ পাওয়ার যোগ্য ছাত্রীদের বার্ষিক 750 টাকা ও 18 বছর পূর্ণ হলে কন্যাশ্রী স্কলারশিপের একটি অংশ K2 স্কলারশিপ এর আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে সেই সমস্ত ছাত্রীরা 25 হাজার টাকা পায়। 

পরবর্তীতে সেই সমস্ত ছাত্রীরা কোন সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে স্নাতক পাস করে স্নাতকোত্তর কোর্সে ভর্তি হলে পুনরাই তারা কন্যাশ্রী স্কলারশিপের আরেকটি অংশ K3 স্কলারশিপে আবেদন করে দুই বছরের 24 হাজার টাকা করে মোট মোট 48 হাজার টাকা পাওয়ার সুযোগ পায়। মহিলা শিক্ষার্থীদের জন্য এটি একটি স্বর্ণময়ী স্কলারশিপ নামে পরিচিতি লাভ করেছে।

স্কলারশিপের নাম কন্যাশ্রী প্রকল্প (Kanyashree Prakalpa)
আবেদন শুরু হবে নিজ নিজ স্কুল থেকে জানা যাবে।
আবেদন শেষ হবে আবেদন শুরু হওয়ার এক মাস পর্যন্ত।
অফিসিয়াল ওয়েবসাইট  Click Here
যোগ্যতা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যাদের বেছে নেবে। 

বিস্তারিত পড়ুন –  কীভাবে কন্যাশ্রী প্রকল্পের জন্য আবেদন করবেন ?

পারম্পরিক স্কলারশিপ (Paramparik Scholarship)

এই স্কলারশিপ টি পশ্চিমবঙ্গের একটি অলাভজনক সংস্থা দ্বারা পরিচালিত হয়। যে সমস্ত মেধাবী ছাত্র-ছাত্রী অর্থনৈতিকভাবে দুর্বল এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেছে এবং পরবর্তীতে ইঞ্জিনিয়ারিং,মেডিকেল,নার্সিং ,স্নাতক, মাস্টার্স ,ডিপ্লোমা প্রভৃতি গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়নরত তারা পশ্চিমবঙ্গের পারম্পরিক স্কলারশিপে (2022-2023) আবেদন করতে পারে। এর আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন অনলাইনে।

স্কলারশিপের নাম পারম্পরিক স্কলারশিপ (Paramparik Scholarship)
আবেদন শুরু হবে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করে স্নাতক করছে ভর্তি হলে।
আবেদন শেষ হবে ইন্টারভিউ ডেট ঘোষণা হওয়ার পূর্ব অবধি।
অফিসিয়াল ওয়েবসাইট click here
যোগ্যতা
উচ্চ মাধ্যমিকে ভালো নম্বর নিয়ে পাশ করলে।

জিপি বিড়লা  স্কলারশিপ (G.P Birla  Scholarship)

এই স্কলারশিপ টি পশ্চিমবঙ্গের সেই সমস্ত ছাত্রছাত্রীদের জন্য যারা অর্থনৈতিকভাবে দুর্বল ও মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিকে 80 শতাংশ নম্বর পেয়েছে। মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিকে 80 শতাংশ নম্বর পেয়ে পাশ করে কলেজে ভর্তি হলে তারা এই স্কলারশিপে আবেদন করে পঞ্চাশ হাজার টাকা অব্দি প্রত্যেক বছরে স্কলারশিপ পেতে পারে।

স্কলারশিপের নাম জিপি বিড়লা ফাউন্ডেশন স্কলারশিপ (G.P Birla  foundation Scholarship)
আবেদন শুরু হবে July 2022
আবেদন শেষ হবে 31st August 2022
অফিসিয়াল ওয়েবসাইট  Click Here
যোগ্যতা
Percentage with 80% (for State Board) or 85% (for Central Board) 

আলো স্কলারশিপ (Aalo scholarship)

এটি শুধুমাত্র পশ্চিমবঙ্গের একাদশ শ্রেণীতে (Art’s, science, commerce)পাঠরত ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য চালু করা হয়েছে। নতুনভাবে আবেদন আগস্ট মাস থেকে শুরু হওয়ার কথা। একাদশ শ্রেণিতে পাঠা তো ছাত্রছাত্রীরা স্বামী বিবেকানন্দের মতো গুরুত্বপূর্ণ স্কলারশিপটির সুবিধা না পাওয়ায় মূলত এর পরিপূরক হিসেবে আলো স্কলারশিপটি চালু করা হয়েছে।

স্কলারশিপের নাম আলো স্কলারশিপ (Aalo scholarship)
আবেদন শুরু হবে August 2022
আবেদন শেষ হবে September 2022
অফিসিয়াল ওয়েবসাইট Click Here
যোগ্যতা
Only for 11th class students 

অনন্ত স্কলারশিপ (Anant merit scholarship)

অনন্ত ফাউন্ডেশন সেই সমস্ত ছাত্রছাত্রীদের বৃত্তি তথা স্কলারশিপ প্রদান করে যারা অর্থনৈতিক ভাবে দুর্বল। শুধুমাত্র মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকে ভালো নম্বর পেয়ে পাস করলে তাদের সেই প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে এবং অর্থনৈতিক পরিস্থিতির দিক বিবেক বিবেচনা করে তাদের এই বৃত্তি প্রদান করা হয়। বর্তমানে এই স্কলারশিপ এর আবেদন শুরু হয়ে গেছে।

স্কলারশিপের নাম অনন্ত স্কলারশিপ (Anant merit scholarship)
আবেদন শুরু হবে এটি প্রায় সারা বছরই চলতে থাকে।
আবেদন শেষ হবে এটি প্রায় সারা বছরই চলতে থাকে।
অফিসিয়াল ওয়েবসাইট  Click Here
যোগ্যতা
10 th pass & 10+2 pass 

এছাড়াও বিভিন্ন পর্যায়ভিত্তিক এবং জায়গাভিত্তিক বিভিন্ন স্কলারশিপ প্রদান করা হয়ে থাকে। ছাত্র-ছাত্রীদের স্থানীয় এমন অনেক সংস্থা বর্তমান থাকে যেখানে দুস্থ দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের অফলাইন application এর মাধ্যমে ও অর্থনৈতিক দিক কতটা দুর্বল তা বাড়িয়েছে পর্যবেক্ষণ করে স্থানীয় সংস্থাগুলি সেই সমস্ত ছাত্রছাত্রীদের স্কলারশিপ প্রদান করে থাকে। উদাহরণস্বরূপ বলা যায় জিডি স্কলারশিপ (GD Scholarship) যেটা জিডি ফাউন্ডেশন এর কর্ণধার প্রদান করে থাকেন।

আরো বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পশ্চিমবঙ্গ স্কলারশিপ প্রক্রিয়া সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে আমাদের ওয়েবসাইটে চোখ রাখুন

এবং নোটিফিকেশন অন করে রাখুন, পরবর্তীতে যখন বিস্তারিত ভাবে স্কলারশিপের আপডেট পাওয়া যাবে তখন সর্বপ্রথম আপনারাই জানতে পারবেন। স্কলারশিপ ছাড়াও আরো বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সরকারি প্রকল্প সম্পর্কে জানতে আমাদের পূর্ববর্তী প্রতিবেদনে নজর দিন এবং পরবর্তী প্রকল্প গুলি সম্পর্কে জানতে হলে আমাদের সঙ্গে জুড়ে থাকুন।

My name is Wasif Hossain. I have been teaching children since graduation as well as writing on various topics with friends. Currently, I am a government teacher. I have also passed many government job exams.